শেখ জামাল কি আবারও পাতানো ম্যাচ খেললো?

প্রকাশের সময়: ৮:০১ অপরাহ্ন - বৃহঃ, জানুয়ারী ১১, ২০১৮

Farashganj

স্পোর্টস লাইফ, প্রতিবেদক বৃহস্পতিবার (১১জানুয়ারি) বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত দিনের প্রথম ম্যাচে শেখ জামাল পরাজিত হয় ফরাশগঞ্জের কাছে। তাও আবার ৩-১ গোলে! একি আসলেই সম্ভব? এবারের লিগে শেখ জামালের অবস্থান দ্বিতীয়। আর তারা কিনা ফরাশগঞ্জের কাছে হারলো ৩-১ গোলে?

যারা বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে বসে খেলাটি দেখেছেন তারা কি বিশ্বাস করবেন যে এটি সিরিয়াস ম্যাচ ছিল?

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগ ফুটবলের প্রথম লেগের খেলায় ফরাশগঞ্জ স্পোর্টিং ক্লাবকে ৫-০ গোলে বিধ্বস্ত করেছিল শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব লিমিটেড। দ্বিতীয় লেগে এসে আগের ম্যাচের ফল পাল্টে দিল ‘লালকুঠি’ খ্যাত ফরাশগঞ্জ!

জয়ী দলের চিনেদু ম্যাথিউ জোড়া গোল করেন। অপর গোলটি করেন মোঃ আলমগীর। বিজিত দলের একমাত্র গোলটি করেন সলোমন কিং কানফর্ম। লীগে এটা সলোমনের ব্যক্তিগত পঞ্চদশ গোল, যা সতীর্থ রাফায়েলের সঙ্গে যুগ্মভাবে সর্বোচ্চ।

বদলাটা নিল ফরাশগঞ্জ ঠিকই। কিন্তু সেটা কতটা নিখাদ জয়, তা নিয়ে যথেষ্ট সংশয় তৈরি হয়েছে। কেননা, পুরো ম্যাচটি দেখে গ্যালারির দর্শক এবং প্রেসবক্সের সাংবাদিকদের কাছে মনে হয়েছে এই ম্যাচে ছিল পাতানো খেলার গন্ধ!

তিনবারের লীগ চ্যাম্পিয়ন জামাল এবার চ্যাম্পিয়ন হতে না পারলেও রানার্সআপ হওয়াটা নিশ্চিত করে ফেলেছে আগেই। সেই শক্তিশালী জামালের এভাবে পয়েন্ট টেবিলের তলানীর দলের কাছে এভাবে অসহায় আত্মসমপর্ণ করাটা বিস্ময়করই বটে!

পুরো ম্যাচে ফরাশগঞ্জ যেভাবে গোল করেছে এবং জামাল যেভাবে গোল মিসের মহড়া দিয়েছে, তাতে আঁচ করা গেছে অনেক কিছুই। শেখ জামাল ম্যাচ ছেড়ে দিলে ফরাশগঞ্জের লাভ কি দেখে নেয়া যাক।

জামালের কাছে হেরে গেলে বৃহস্পতিবারই অবনমন নিশ্চিত হয়ে যেতো ফরাশগঞ্জের। কিন্তু জামালের বিপক্ষে ৩ পয়েন্ট পাওয়ায় আগামী মৌসুমে প্রিমিয়ার লীগে খেলার আশা বেঁচে থাকলো তাদের। কেননা ২২ ম্যাচে তাদের হয়েছে ১৭ পয়েন্ট।

এক ম্যাচ কম খেলে সমান পয়েন্ট মুক্তিযোদ্ধারও। অন্যদিকে ২১ ম্যাচে রহমতগঞ্জের ১৫ পয়েন্ট। তাই শেষ ম্যাচে সাইফের বিপক্ষে হেরে গেলে সর্বনাশ হবে রহমতগঞ্জই। কিন্তু তারা জিতে গেলে শেষ রক্ষা হবে না ফরাশগঞ্জের।

তখন হয়তো তাদের বিদায় নিতে হবে নয়তো প্লে অফ এ নির্ধারিত হবে ভাগ্য। সেটি নির্ভর করবে শেষ ম্যাচে মুক্তিযোদ্ধার ম্যাচের ফলের ওপর।

উল্লেখ্য, শেখ জামালের বিপক্ষে পাতানো খেলার এমন অভিযোগ নতুন নয়। এর আগেও ২০১১ সালে প্রিমিয়ার লীগে রহমতগঞ্জের সঙ্গে পাতানো ম্যাচ খেলে ২০ লাখ টাকা জরিমানা গুণতে হয়েছিলো এই ক্লাবটিকে।

উপরে