বাদল রায়ের শারীরিক অবস্থার আরো উন্নতি

প্রকাশের সময়: ৫:৪৭ অপরাহ্ন - শনি, জুন ১৭, ২০১৭

badol ray

স্পোর্টস লাইফ, প্রতিবেদক চলতি মাসের গত সোমবার (৫জুন) রাত ৩টার দিকে আকস্মিক ব্রেইন ষ্টোকে আক্রান্ত হন সাবেক তারকা ফুটবলার ও বিশিষ্ট ক্রীড়া সংগঠক বাদল রায়। এরপর চিকিৎসার জন্য বাদল রায়কে স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সে সময় বাদল রায়ের সার্বিক পরিস্থিতি ক্রীড়াপ্রেমী মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে বার বার অবহিত করেন বিশিষ্ট ক্রীড়া সংগঠক ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক হারুনুর রশীদ।

অবস্থার অবনতি হলে বুধবার (৭জুন) সন্ধ্যায় এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে বাদল রায়কে উন্নত চিকিৎসার জন্য দূত পাঠানো হয় সিঙ্গাপুরের গ্লিনেগেলস হাসপাতালে। সেখানে প্রায় ৪ঘন্টা ধরে বাদল রায়ের মস্তিস্কে সফল অস্ত্রপচার করা হয়। ধীরে ধীরে বাদল রায়ের শারীরিক অবস্থার বেশ উন্নতি হচ্ছে।

আজ শনিবার (১৭জুন) বিকেলে সিঙ্গাপুর থেকে মুঠোফোনে বাদল রায়ের স্ত্রী মাধবী রায় জানান, আইসিইউ থেকে গতকাল শুক্রবার বাদলকে ৮২৩ নম্বর কেবিনে আনা হয়। আজ তাকে চেয়ারে বসানো হয়েছে। টিউব এর মাধ্যমে তরল খাবার দেয়া হচ্ছে। ডাক্তার বলেছেন আমাগী সোমবার সরাসরি মুখে খাবার খেতে দিবেন। তার বুকে একটা ইনফেকশন রয়েছে তাই সবার সাথে এখন কথা বেশি বলতে ডাক্তার নিষেধ করেছেন।

তিনি আরো জানান, টিভি দেখা, ল্যাপটপ ব্যবহার, পেপার পড়া, লেখালেখি ও মোবাইল ব্যবহার করতে চাইলে তিনি ব্যবহার করতে পারবেন তবে সাবধানে। অবশ হয়ে থাকা বাম পা আগের বেশ ভালভাবে নড়াতে পারছেন। তবে বাম হাতটায় এখনও সমস্যা আছে। আশা করছি দূত ভাল হয়ে যাবে। সবকিছু চিনতে পারছে সেই সাথে কথাও বলছেন। মাধবী রায় আরো বলেন, তার বড় মেয়ে গঙ্গাত্রী রায় শুক্রবার রাত একটায় অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্ন থেকে সিঙ্গপুরে তার বাবার কাছে এসে পৌঁছেছে। সবমিলে দেশবাসীর দোয়া ও ভালবাসায় বাদল আগের চেয়ে অনেক ভাল আছে এবং বেশ দূত সবকিছুর উন্নতি হচ্ছে।

সিঙ্গাপুরে চিকিৎসারত বাদল রায়ের সর্বশেষ অবস্থা সম্পর্কে বিশিষ্ট ক্রীড়া সংগঠক ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক হারুনুর রশীদ বলেন, বাফুফের স্টার্ফ হুমায়ুন নিজেস্ব কাজে সিঙ্গাপুরে গেছেন। সে আজ শনিবার (১৭জুন) সকালের দিকে আমাকে ফোনে বাাদলের সর্বশেষ অবস্থা সম্পর্কে জানান, বাদল স্যার আগের চেয়ে অনেক ভাল আছেন।

সবকিছু বেশ দূত ইম্প্রোফ করছে। ক্রীড়া সংগঠক হারুনুর রশীদ আরো বলেন, ওখানে বাদলের এক ভাগ্নে আছেন সে আমাকে জানান, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার তাৎক্ষনিক সহযোগিতা এবং হারুন মামাসহ ও অন্য সকলের সহযোগি না পেলে আমরা বাদল মামাকে এভাবে সুস্থ করে তুলতে পারতাম না। আমরা সবার প্রতি কৃতজ্ঞ ও দোয়া প্রার্থী। হারুনুর রশীদ আরো যোগ করেন, বাদল তার বাম পাশটা আগের চেয়ে এখন বেশ ভালভাবে নড়াতে পারছে। সব মিলে আমরা এখন বাদলকে নিয়ে বেশ আশাবাদী।

বাদল রায়ের সুস্থতা সম্পর্কে তার সহকর্মী সাবেক তারকা ফুটবলার হাসানুজ্জামান খান বাবলু বলেন, সিঙ্গাপুরে আমি ও হারুন ভাইসহ আমরা সবাই বাদলের সার্বক্ষনিক খোঁজ খবর রাখছি। উনি দূত সুস্থ হয়ে উঠছে। আমরা আশা করছি মাস খানিকের মধ্যে বাদল রায় পুরোপুরি সুস্থ হয়ে আমাদের মাঝে ফিরে আসবেন।

banner1

উপরে